টানা তিন ম্যাচে সেঞ্চুরি পেলেন আশরাফুল

টানা তিনটি (মোট পাঁচটি) সেঞ্চুরি দিয়ে কি নির্বাচকদের একটু ভাবনায় ফেলে দিলেন বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক।

আবারো বৃথা আশরাফুলের সেঞ্চুরি। এবার মিজানুরের শতকের কাছে ম্লান হল তার সেঞ্চুরি। ব্রাদার্সের কাছে ৬ উইকেটে হারলো তার দল কলাবাগান।

কলাবাগানের দেয়া ২৫৩ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে দুই ওপেনার মিজানুর রহমান ও জুনায়েদ সিদ্দিকীর ব্যাটে চমৎকার শুরু পায় ব্রাদার্স। দুজনে মিলে মাত্র ১১ ওভারে যোগ করেন ৬৯ রান। জুনায়েদ ১৬ রানে ফিরে গেলেও একপ্রান্ত আগলে রাখেন মিজানুর তুলে নেন নিজের শতক। মাত্র ১০৪ বলে ১১ চার ও ৬ ছক্কায় ১১৫ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে ফিরে যান তিনি।

মিজানুর ফিরে গেলে ইয়াসির আলি ৪৫ ও নাজমুস সাদাত ৩২ রানে অপরাজিত থাকলে ৪৪.৩ ওভারেই মাত্র ৪ উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্যে পৌছে যায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন।

এর আগে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দলীয় মাত্র ৫ রানেই ওপেনার ফয়সালকে হারালেও ৩ নম্বরে ব্যাট করতে নামা আশরাফুল আরেক ওপেনার ওলিউল করিমকে নিয়ে গড়েন ১১৬ রানের জুটি। ওয়ালিউল ৭৯ রানের অসাধারণ এক ইনিংস খেলে ফিরে গেলে আরেক প্রান্ত আগলে রাখেন আশরাফুল। তবে ইনিংসের শুরুতে তার ব্যাটিং ছিল অত্যন্ত ধীরগতির। ১০২ বলে নিজের অর্ধশতক পূরণ করেন তিনি।

তবে অর্ধশতক পূরণের পরেই পালটে ফেলেন নিজের ব্যাটিং স্টাইল। ১০২ বলে অর্ধশতক করা আশরাফুল সেঞ্চুরি হাকান ১৩৭ বলে অর্থাৎ মাত্র ৩৫ বলে করেন পরের অর্ধশতক। শেষ পর্যন্ত ১০ চারে ১৩৭ বলে ১০২ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। তার এই সেঞ্চুরি ও শেষ দিকে ফারুক হোসেনের ২২ বলে ২৮ রানে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩ উইকেটে ২৫২ রান করে কলাবাগান।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 + 14 =

shares