প্রস্তুতি ম্যাচটিকে কাজে লাগিয়েছেন মাশরাফি

বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা এ হারের মধ্যেও খুঁজে নিয়েছেন কিছুটা প্রাপ্তি। দলের পেস আক্রমণের মূল ভরসা মুস্তাফিজুর রহমানের পুরনো গতি ফিরে পাওয়া।

২২ ওভার শেষে ভারতের স্কোরকার্ডে ৪ উইকেটে ১০২ রান সেই ধারাবাহিকতার প্রামাণ্য হয়েই ছিল। তবে এর পরই যেন পথ হারায় বাংলাদেশের বোলিং। লোকেশ রাহুল এবং মহেন্দ্র সিং ধোনি রীতিমতো চড়াও হন সাকিব আল হাসান, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোসাদ্দেক হোসেনদের ওপর। সুবাদে ভারত গড়ে পাহাড়সম সংগ্রহ।

মুস্তাফিজ তার পুরনো গতিতে বল করতে পারছে দেখে আমি অনেকখানি স্বস্তি পাচ্ছি। খুব ভালো বোলিং করেছে সে, ১৪০-এর আশপাশে গতি ধরে রেখেছে। সে যদি এরকমভাবে বোলিং করে যেতে পারে, নিজের মতো করে কাজটা ঠিকঠাক করতে পারে, তাহলে আমাদের বোলিং আক্রমণ অনেকখানি শক্তিশালী হয়ে যায়। রুবেল এবং সাইফউদ্দিনের কাছ থেকেও আজ দারুণ সহায়তা পেয়েছি। আয়ারল্যান্ডে আমরা নতুন বলে ভালো করতে পারিনি। এখানে আমরা নতুন বলে নিজেদের বোলিংটা ভালো করতে চাইছিলাম। এই ম্যাচে সেটা হয়েছে।

মাশরাফি বিন মুর্তুজা, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধীনায়ক

ম্যাচের আগে থেকেই অবশ্য চোটটা ছিল, এমনকি প্রস্তুতি ম্যাচে তার খেলা নিয়েও ছিল অনিশ্চয়তা। তবে অনুশীলনের তাগিদ থেকেই নেমেছিলেন বোলিংয়ে। পায়ে টান লাগার পর বেশ অনেকটা সময় মাঠের বাইরেই কাটান মাশরাফি।

এরকম চোটের ক্ষেত্রে প্রথম এক-দুই ওভার করতেই সমস্যা হয়। সেটা করে ফেলতে পারলে আর সমস্যা হয় না; কিন্তু এবার ষষ্ঠ ওভারে টান লেগে গেল। হয়তো চার-পাঁচ ওভার করেই স্পেল শেষ করতে পারতাম; কিন্তু ওই সময়টায় রোহিত আর কোহলি রান বের করার জন্য বারবার শট খেলতে চাইছিল। তখন মনে হলো, এমন আক্রমণের সামনে বোলিং অনুশীলন করা জরুরি।

মাশরাফি বিন মুর্তুজা, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধীনায়ক

এসব চোটের ক্ষেত্রে সাধারণত প্রায় এক সপ্তাহের বিশ্রাম দরকার হলেও মাশরাফি তা মানবেন কেন? প্রথম ম্যাচের আগে যে কয়দিন আছে, সে সময়টাতেই যথাসম্ভব ফিট হয়ে নামবেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fifteen + six =

shares