বিশ্বকাপের আগেই যোগ্য সঙ্গী খুঁজে পাবার ব্যাপারে আশাবাদী তামিম

যেন ‘অধিক সন্ন্যাসীতে গাজন নষ্ট’ হওয়ার মতো অবস্থা। ওপেনিং পজিশনে ব্যাট করার জন্য ব্যাটসম্যানের অভাব না থাকলেও তামিম ইকবালকে সঙ্গ দেওয়ার মতো একজন যোগ্য ওপেনারকে খুঁজে পায়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বছরের পর বছর ধরে বিভিন্ন ক্রিকেটারকে দিয়ে চেষ্টা চালানো হলেও থিতু হতে পারেননি তাদের কেউই।এত বছরেও একজন যোগ্য সঙ্গী না পেলেও হতাশ হননি তামিম। বরং অন্য ওপেনারদের সামর্থ্যে ভরসা রাখতে চান দেশসেরা এই ওপেনার।

উইন্ডিজ সফরে ওয়ানডে আর টি টোয়েন্টি সিরিজে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন তামিম ইকবাল। সেই ধারাবাহিকতা এশিয়া কাপেও ধরে রাখতে চান চট্টগ্রামের এই ক্রিকেটার।তাইতো ছুটির সময়েও মিরপুরে নিয়মিতই আসছেন এই ওপেনার। বৃহস্পতিবার নিজ উদ্দোগে লম্বা সময় ব্যাটিং অনুশীলন করেছেন তামিম।

বৃহস্পতিবার এ প্রসঙ্গে তামিম বলেন, ‘এটা হতাশার না। হয়তো তাদের সেইরকম পারফরম্যান্স হচ্ছে না। কিন্তু আমি দলের সাথে থেকে জানি- যারাই দলে এই দায়িত্ব পালন করছেন, তারা সবাই প্রচণ্ড পরিমাণ চেষ্টা করে। যতটুকু নিজেদের উন্নতি করা দরকার, সেটা তারা করছে। হয়তো প্রত্যাশিত ফলাফল পাচ্ছি না। কিন্তু আমার কারো সামর্থ্যের ওপর কোনো সন্দেহ নেই।’

উদ্বোধনী জুটিতে তামিমের সঙ্গী হিসেবে কখনো ইমরুল কায়েস, কখনো সৌম্য সরকার, কখনো লিটন কুমার দাস, আবার কখনো এনামুল হক বিজয়কে দেখা যায়। কিন্তু তাদের কেউই প্রত্যাশা মেটাতে পারেননি, দিতে পারেননি আস্থার প্রতিদান। তবুও তামিমের চোখে এদের সবাই যোগ্য, ‘আমার সাথে যেই ব্যাট করেছে, তারা সবাই যোগ্য বাংলাদেশকে অন্তত ১০ বছর সার্ভিস দেওয়ার জন্য। আমার কাছে মনে হয়, দুই-একটা ম্যাচ দরকার তাদের। ভালো একটি ইনিংস হলে ওরা স্থায়ী হয়ে যাবে।’

টিম ম্যানেজমেন্টের ভাবনায় থাকা ক্রিকেটারদের পর্যাপ্ত সময় দিলেই কাঙ্ক্ষিত ফল পাওয়া সম্ভব উল্লেখ করে তামিম বলেন, ‘বিশ্বকাপের বেশিদিন নেই, কিন্তু আমাদের প্রচুর খেলা আছে। আশা করব, টিম ম্যানেজমেন্ট যাদেরকে নিয়ে ভাবছেন, তাদের যথেষ্ট সময় দেওয়া হোক। আশা করি, যথেষ্ট সুযোগ পেলে ভালো করবে। তারা সবাই খুবই প্রতিভাবান। আশা রাখি, সুযোগ পেলে তারা জায়গা পাকা করতে পারবে।’

উইন্ডিজ সিরিজের মাঝপথে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন নেইল ম্যাকেঞ্জি। মাত্র অল্প কয়দিনে দক্ষিণ আফ্রিকার এই সাবেক ব্যাটসম্যান দলের সঙ্গে যতটুকু কাজ করেছেন, তাতেই মুগ্ধ তামিম ইকবাল। দলের নতুন ব্যাটিং পরামর্শকের সঙ্গে আরও নিবিড়ভাবে কাজ করতে চান দেশসেরা এই ওপেনার।

জাতীয় দলের এই ড্যাশিং ওপেনার বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে মুখিয়ে আছি তার সঙ্গে কাজ করার জন্য। আমাকে সে যেসব কথা বলেছে, তা আমার কাছে ব্যক্তিগতভাবে খুবই ভালো লেগেছে। আমি যদি ওর কথাগুলো শুনে নিজেকে আরও শাণিত করতে পারি, তাহলে আমার মনে হচ্ছে, আমি আরও ৫-১০ ভাগ উন্নতি করতে পারব। ওই উন্নতি করার জায়গাটা আছে।’বাঁহাতি এই ওপেনার বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়, তার বাংলাদেশ ক্রিকেটে অনেক কিছু দেওয়ার আছে। যে কদিন ওর সাথে কাজ করেছি, আমার মনে হয়েছে, সে দারুণ একজন কোচ। সে যেভাবে ব্যাটিং নিয়ে চিন্তা করে, আমার কাছে মনে হয়, আমাদের অনেক কিছু শেখার আছে তার কাছ থেকে।

আগামী ১৫ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতে বসবে এশিয়া কাপের পরবর্তী আসর।এবার বাংলাদেশের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ তা বলার অপেক্ষা রাখে না। শেষ তিন আসর ঘরের মাঠে নিজেদের চিরচেনা কন্ডিশনে খেলেছিল বাংলাদেশ। এবার সংযুক্ত আরব আমিরাতে। ভিন্ন কন্ডিশনের পাশাপাশি ভিন্ন  ফরম্যাটে। গ্রুপে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আফিগানিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। তাদের হারিয়ে যেতে হবে সেরা চারে। এরপর ফাইনালে। আপাতত ফাইনাল নিয়ে ভাবছেন না তামিম ইকবাল। দেশসেরা ওপেনারের মতে শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তানের ম্যাচটি হবে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

মিরপুরে  তামিম বলেছেন,‘এশিয়া কাপে প্রথম দুই ম্যাচ আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের দ্বিতীয় রাউন্ডে কোয়ালিফাই করতে হবে। আমাদের প্রস্তুতিটা সে জন্যই। আমরা যদি এখন ফাইনাল কিংবা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার চিন্তা করি যেটা বুদ্ধিমানের কাজ হবেনা। দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার জন্য আমাদের প্রথম দুই ম্যাচ জিততে হবে।  প্রথম দুই প্রতিপক্ষ নিয়েই আমাদের পরিকল্পনা করা উচিত।’

শ্রীলঙ্কা-আফগানিস্তানকে নিয়ে তামিম আরও বলেন,‘আমরা ভালো খেলে আমাদের দিনে ওদেরকে এর আগে হারিয়েছি। আশা করি এই দুইটি ম্যাচে আমরা ভালো প্রস্তুতি নিয়ে যাব এবং আমাদের সেরা খেলাটা খেলার চেষ্টা করব।’

সংযুক্ত আরব আমিরাতে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে কেবল সাকিব ও তামিমের। পাকিস্তান সুপার লিগ খেলার সুবাদে সেখানে খেলেছেন দেশের সেরা দুই তারকা। উইকেট সম্পর্কে মোটামুটি একটা ধারণা তামিমের রয়েছে। দলের অনুশীলনে নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করবেন বলে জানিয়েছেন বাঁহাতি ওপেনার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 + eleven =

shares