সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে বড় রেকর্ডই গড়ে ফেললেন রহমত শাহ

বাংলাদেশ স্পিনার নাঈম হাসানের বলে ১০২ রানে আউট হওয়ার আগে তিনি টেস্ট ইতিহাসের পাতায় জায়গা করে নেওয়া অস্ট্রেলিয়া ব্যাটসম্যান চার্লস বার্নেরম্যান, বাংলাদেশের আমিনুল ইসলাম কিংবা ভারতের লালা অমরনাথের পাশে বসেছেন।

টেস্ট ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে প্রথম সেঞ্চুরি চার্লস বানেরম্যান। তিনি ক্যারিয়ারে মাত্র তিনটি টেস্ট খেলেন। এরমধ্যে এক টেস্টে খেলেন ১৬৫ রানের দারুণ এক ইনিংস। ক্যারিয়ারে ওটাই তার একমাত্র সেঞ্চুরি। ইংল্যান্ডের হয়ে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি উইলিয়াম গিলবার্ট গ্রেসের। তিনি ক্যারিয়ারে দুটি সেঞ্চুরি পান। দক্ষিণ আফ্রিকায় হয়ে প্রথম সেঞ্চুরি করেন জিমি সিনক্লিয়ার। শুধু প্রথম নয় দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে প্রথম তিন সেঞ্চুরিই ওঠে তার নামে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে প্রথম সেঞ্চুরি ক্লিফফোর্ড রোচের। তিনি তার প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ওপেন করতে নেমে সেঞ্চুরি করেন। কিউইদের হয়ে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি করেন স্টিউ ডেম্পেস্টার। ভারতের হয়ে লাল অমরনাথ প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি করেন। তার ক্যারিয়ারে সেঞ্চুরি ওই একটিই। পাকিস্তানের হয়ে প্রথম সেঞ্চুরি করে ইতিহাসে নাম ওঠে নাজের মোহাম্মাদের। শ্রীলংকার হয়ে রেকর্ডটা ওপেনার সিদ্ধার্ত ওটেমুনির।

জিম্বাবুয়ের হয়ে আন্তর্জাতিক টেস্টে প্রথম সেঞ্চুরি করেন ডেভিড হগটন। তিনি জিম্বাবুয়ের হয়ে ২৪ টেস্ট খেলে চারটি সেঞ্চুরি করেন। বাংলাদেশের হয়ে টেস্টে প্রথম সেঞ্চুরি করেন আমিনুল ইসলাম বুলবুল। তিনি বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টে ভারতের বিপক্ষে ১৩৫ রানের ইনিংস খেলেন। তার ১৩ টেস্টের ক্যারিয়ারে ওটাই একমাত্র সেঞ্চুরি। আয়ারল্যান্ডের হয়ে প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি কেভিন ও’ব্রেইনের। তিনি ১১৮ রান করেন। টেস্ট খেলুড়ে এগারো দেশের মধ্যে সেঞ্চুরি বাকি ছিল কেবল আফগানিস্তানের। বাংলাদেশের বিপক্ষে সেই কোটা পূরণ করলেন রহমত শাহ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

12 + two =

shares