হারের বৃত্তে জাতীয় দল এমনকি অবস্থা পাইপ লাইনও

হারের বৃত্তে জাতীয় দল, কি অবস্থা পাইপ লাইনের? সেই প্রশ্নের উত্তর জানার বড় মঞ্চ ছিলো-হাইপারফেন্স দলের সাথে শ্রীলঙ্কা দলের সিরিজে। যেখানে শুরুতেই বড় ধাক্কা। বিকেএসপিতে ১ম ম্যাচে ১৮৬ রানের বড় হার। এরপরের ম্যাচে নাটকীয়ভাবে ২ উইকেট জিতে সিরিজে ফিরে নাজমুল হোসেন শান্তর দল।

সাইফ হাসানের সেঞ্চুরির পরও তৃতীয় ওয়ানডেতে হারতে হলো বাংলাদেশ হাই পারফরমেন্স দলকে। বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচ ৭ উইকেটে জিতে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নেয় শ্রীলঙ্কা ইমার্জিং দল। সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে সাইফের সেঞ্চুরিতে ৫ উইকেটে ২৬৯ রান করে বাংলাদেশ। জবাবে ২৪ ওভারে ৩ উইকেটে ১৯৯ রান করে লঙ্কানরা। এরপর বৃষ্টিতে আর বল না গড়ালে ডি-এল ম্যাথডে জয় পায় সফর-রতরা।

খুলনায় তাই তো ছিলো সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচ। দলীয় ৯ রানে মোহাম্মদ নাইমের বিদায়।  এরপর সাইফ হাসান আর অধিনায়ক নাজমুল শান্তর প্রতিরোধ। শাস্ত ৩৯ আর গেল ম্যাচের পারফরমার ইয়াসির রাব্বি ব্যর্থ। শুরুতে স্থির শান্ত শেষ দিকে ছক্কার বৃষ্টি নামান। ৭ ছক্কায় সেঞ্চুরি পেরিয়ে থামেন ১১৭ এ। ফর্মে থাকা আফিফ হোসেনের ৬৮ এ আড়াইশো পেরোয় স্বাগতিকরা।

তবে ফ্লাট উইকেট ২৭০ রান যে কঠিন নয় সেটা প্রমান করে দেন শ্রীলঙ্কান ওপেনার পাধুন নিশাকা। সাইফ যেখানে ১৩০ বলে করেন ১১৭ সেখানে নিশাকা তার চেয়ে ৫২ বল কম খেলে করেন  ১১৫। ঝড়ো এই ইনিংসেই পেছনে পরে বাংলাদেশ। সাথে মিনোধ ভানুকার ৫৫ রানের ক্যামিও।

নখ দন্তহীন বোলিং ছিলো পাইপ লাইনেও। অভিজ্ঞ শফিউল ইসলাম ৫ ওভারে ৩৫ রান। জাতীয় ক্যাম্পে ডাক পাওয়া লেগ স্পিনার আমিনুল বিপ্লব ৪ ওভারে ১ উইকেটে পেলেও খরচ করেছেন ৩২।

ঘরের চেনা মাঠ আর কন্ডিশনে আফগানিস্তান এ দলের কাছে হারের পর,  লঙ্কানদের কাছেও এমন ব্যর্থতা চিন্তার খোরাক হতে পারে বোর্ডের নীতি নির্ধারকদের।

যদিও সায়মন হালমট শীষ্যদের সুযোগ থাকছে ৪ দিনের ম্যাচে ঘুড়ে দাড়ানোর। দুই ম্যাচ সিরিজেরর ১ম ম্যাচ ২৭ আগস্ট খুলনাতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

8 + 19 =

shares