হ্যাজার্ড ও ডি ব্রায়ানে সাথে কারা থাকছেন বেলজিয়ামের ২৩ সদস্যের তালিকায়

ইতিমধ্যেই আলোচনা শুরু হয়ে গেছে ২০১৮ বিশ্বকাপে বেলজিয়ামের স্কোয়াড নিয়ে।   

আবারো ডার্ক হর্স খেতাব নিয়ে রাশিয়ার গ্রীষ্মকালীন বিশ্বকাপে যোগ দিচ্ছে বেলজিয়াম।  ইডেন হ্যাজার্ড, কেভিন ডি ব্রায়ান ও দ্রিস মারতেন্স এর মতো খ্যাতিমান তারকাদের রেড ডেভিলে দেখা যেতে পারে যারা ইতোমধ্যে আন্তর্জাতিকভাবে খ্যাতি অর্জন করেছেন।

নয়টি জয় ও একটি ড্র নিয়ে গ্রুপ এইচ এর শীর্ষে রয়েছে বেলজিয়াম। রবার্তো মারতিঞ্জের ছেলেরা শক্তির বিচারে গ্রুপের অন্যদের থেকে এগিয়ে রয়েছে, এই গ্রুপের অন্য দলগুলো হলো পানামা, তিউনিসিয়া এবং ইংল্যান্ড।

বেলজিয়ামে বেশ কিছু প্রতিভাবান খেলোয়াড় রয়েছে, এর মধ্যে কেভিন ডি ব্রায়ান তালিকার উপরে জায়গা করে নিয়েছে। ম্যানচেস্টার সিটির প্রতিভাবান এই মিডফিল্ডার পেপ গার্দিওলার অধিনে রয়েছে, বেলজিয়ামের বিশ্বকাপ জয়ের প্রধান হাতিয়ার হিসেবে তাকেই ধরা হচ্ছে।

এছাড়া, চেলসি তারকা ইডেন হ্যাজার্ডের অসাধারন ড্রিবলিংয়ের ক্ষমতা রয়েছে, তার একটি দৌড় খেলা শেষ করে দিতে পারে।

গোলকিপার, থিবুত করতস, হ্যাজার্ডের সঙ্গী, বিশ্ব ফুটবলে অন্যতম গোলকিপারদের একজন, যিনি ১ নং জার্সি নিয়েই খেলবেন। তার সঙ্গী হিসেবে থাকবে সিমন মিগ্লেট যিনি লিভারপুলের গোলকিপার ছিলেন।

জ্যান ভারতংহেন এই বছর টটেনহ্যামে ভালো সময় কাটিয়েছে, হোয়াইট হার্ট লেনে প্রথম খেলায় ভালো সাড়া জাগিয়েছে।

টবি আলদেরয়্যারদ টটেনহ্যামের অন্যতম একজন খেলোয়াড়, এই মৌসুমে খারাপ সময় পার করেছে যার কারনে বিশ্বকাপে নাম কিছুটা পিছিয়ে পরেছে। তবে সেন্টারে তার অবস্থান অপূরণীয়, রবার্তো মারতিঞ্জ সম্প্রতি তার ফিটনেস পরীক্ষার জন্য ডেকেছেন, যার ফলে আবার তার খেলায় ফেরার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে মোহাম্মাদ সালাহ ও হ্যারি কেনের গোলের কারনে রমেলু লুকাকু এই মৌসুমে গোল করতে না পারায় কিছুটা পিছিয়ে পরেছে, তবে এখন পর্যন্ত ২৭ গোল করে বেলজিয়ামের আক্রমন ভাগের দায়িত্বে থাকবে লুকাকু। ডিরিস মারতেন্স নেপোলির হয়ে ২১ টি গোল করে এবং বেশ কিছু গোলে সহায়তায় বড় ভুমিকা পালন করে।

আলেক্স উইটসেল সবসময় বেলজিয়াম দলে ছিলেন চায়না যাওয়ার আগ পর্যন্ত এবং রাশিয়া বিশ্বকাপেও তিনি থাকছেন। মুসা ডেম্বেলে গতিময় ফুটবলার হিসেবে সুনাম কুড়িয়েছেন।

ইডেন হ্যাজার্ডের ভাই, থরগান বুন্দেস লীগায় ৯টি গোল ও ৭টি গোলের সহায়তা করে বুরুসিয়ার সাথে ভালো সময় পার করেছে। স্টিভেন ডিফর ফেব্রুয়ারির ইনজুরি থেকে ফিরে বড় মঞ্চের জন্য প্রস্তুত রয়েছে। ডিফর মাঠে নামতে না পারলে নিয়মিত লীগ ১ খেলা মোনাকোর জুরি তিলেমাস দলে যুক্ত হবে।

মিকায় বাতসুই ডিফর এর মতোই ইনজুরিতে ছিলেন বুরুসিয়া ডর্টমুন্ডে থাকা অবস্থায় এবং পরবর্তীতে চেলসিতে ফিরে আসে। আশা করা যাচ্ছে বিশ্বকাপ ২০১৮ এ সুস্থভাবেই ফিরে আসবে এই ফুটবলার। বুন্দেস লীগায় তার ১০ গোল রয়েছে। প্রিমিয়ার লীগে মাত্র দুটি গোল করে ক্রিস্টিয়ান বেনটেকে দুঃসময় পার করছেন, যার জন্য তার অবস্থানটা একটু নড়বড়ে।

লেফট ব্যাক জর্ডান লুকাকু দলে থাকাটা নিশ্চিত করেছে মারতেঞ্জ। দেদ্রিক বয়েতা ম্যানচেষ্টার থেকে এখন চেলসিতে রয়েছে, তার অবস্থানও দলে নিশ্চিত হয়েছে।

মিড ফিল্ডের লেন্ডার ডেনডংকার এর ওয়েস্ট হ্যামে যাওয়ার কথা রয়েছে, সেও দলে যায়গা নিশ্চিত করেছে, সে দলে ডিফেন্ডারের ভুমিকাও পালন করতে সক্ষম।

সাবেক ম্যানচেস্টার তরুন আদনান জানুজেজ ক্লাবের খেলায় কিছুটা পিছিয়ে রয়েছে, এর পরেও তিনি বিশ্বকাপে দলে থাকছেন। তার দলে থাকায় আক্রমন ভাগ শক্তিশালী হয়ে উঠবে।

কেভিন মিরালাস ইংলিশ ফুটবলে এভারটনের পরিচিত নাম, কিন্তু সম্প্রতি গ্রিক সুপার লীগে বাজে খেলার জন্য বাদ পরেন। মিরালস ক্লাবের ভাদিস ওজিজারও একই পরিনতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 + six =

shares